CSE-India


সেটেলমেন্ট পদ্ধতি

ক্লিয়ারিং হাউস এর কার্যকরী পদ্ধতি ক্লিয়ারিং, সেটেলমেন্ট এবং নিলামের প্রধান বৈশিষ্ট্য

নিস্পত্তির পদ্ধতি

ক্লিয়ারিং হাউজের কার্যপ্রণালী ও এর লক্ষণীয় বৈশিষ্ট্য, পরিশোধ এবং নিলাম পদ্ধতি

  • নিস্পত্তির পদ্ধতি
  • নিস্পত্তির সময়কাল
  • স্ক্রিপ বিতরণ
  • মোট প্রদেয় বা নেট প্রাপ্য গণনা
  • নিলাম (চুক্তি এর সমাপ্তি)
  • নিলামের সময়সূচি এবং পদ্ধতি


নিস্পত্তির পদ্ধতি

বর্তমানে স্ক্রীন ভিত্তিক প্রযুক্তির ফলে আদেশ অনুমোদন করা থেকে উদ্ধৃতি প্রদান পর্যন্ত সবকিছুই কম্পিউটারাইজড। বাণিজ্যিক অধিবেশনের শেষে সদস্য কে তাঁর দৈনন্দিন লেনদেনের প্রতিবেদন প্রভৃতি পদ্ধতি থেকে ডাউনলোড করতে হবে। নিস্পত্তির সময়ের শেষে বিলি মূল্য (সাধারণত পরিশোধের সময়সীমার শেষ দিন বন্ধ মূল্য) পদ্ধতির দ্বারা স্থির হবে এবং সেই স্থির অভিন্ন হারেই আদান প্রদান পরিচালিত হবে। প্রত্যেক সদস্যের পরিশোধের প্রতিবেদন পদ্ধতির দ্বারা নির্মিত হবে। সদস্য পরিশোধের দ্বিতীয় দিনে এই প্রতিবেদন ডাউনলোড করতে পারবেন।

নেট বিলিকরনের বিবৃতি সদস্য দ্বারা গঠিত হবে।
নেট বিলিকরনের বিবৃতি সদস্য দ্বারা স্বীকৃত হবে।
উদ্বর্ত – পত্রে সদস্যের নেট প্রদেয় ও নেট প্রাপ্য উল্লেখ থাকবে।

নিস্পত্তির সময়কাল:

বর্তমানে এক্সচেঞ্জ নিম্নলিখিত নিস্পত্তির সময়সূচি নিম্নরূপ:
ঘূর্ণায়মান/ চলতি বিলি ব্যবস্থা – দৈনিক
স্বতন্ত্র্যসূচক অংশ – দৈনিক

স্ক্রিপ বিতরণ- (ঘূর্ণায়মান মীমাংসা স্বাতন্ত্র্যসূচক অংশের জন্য প্রযোজ্য )

সদস্যদের ডাউনলোড তথ্য সামগ্রী করা নেট বিলিকরনের (সিকিউরিটিস পে-ইন) বিবৃতি অনুযায়ী এক্সচেঞ্জের কাছে তথ্য পেশ করতে হবে।
বাণিজ্য তারিখের ৩দিন পর সম্পত্তির নিদর্শনপত্র কার্যকারী হয়। নির্দিষ্ট দিনে সকাল ১১ টার মধ্যে আড়তের দালালের মাধ্যমে শেয়ার পৌঁছে দিতে হয়। ভাণ্ডার অংশগ্রহণকারীদের জন্য সঞ্চালনের তারিখটি প্রথাগতভাবে সম্পত্তির নিদর্শনপত্র জমা দেওয়ার ১দিন পূর্বে ধার্য হয়ে থাকে। সম্পত্তির নিদর্শনপত্র টি (এন এস ডি এল ও সি ডি এস এল) উভয় প্রকার ভাণ্ডার দ্বারা একই সময় কার্যকর হয়ে থাকে।
বাণিজ্য তারিখের ৩য় কর্মরত দিনে স্বতন্ত্র্যসূচক অংশের সম্পত্তির নিদর্শনপত্র কার্যকারী হয়। সম্পত্তির নিদর্শন পত্রের নির্দিষ্ট দিনে দুপুর ১২ টার মধ্যে সদস্যকে অবশ্যই শেয়ারটি বাস্তবাকারে ক্লিয়ারিং হাউজে পৌঁছে দিতে হবে।

মোট প্রদেয় বা নেট প্রাপ্য গণনার হিসাব (সদস্যের উদ্বর্ত – পত্রে উল্লি্খিত)

সদস্যদের মোট প্রদেয় ও নেট প্রাপ্য সিস্টেম দ্বারা নির্ণীত হয়ে নিম্নলিখিত উপায় হিসাবে দাখিল করা হয়- সদস্যের প্রদেয় অর্থ ও প্রাপ্য অর্থ শেয়ারের মোট প্রাপ্তি / সাধারন প্রদেয় হিসাবে লিপিবদ্ধ করা হয়। সদস্যের প্রদেয় অর্থ ও প্রাপ্য অর্থের স্বতন্ত্র্যসূচক অংশ প্রাপ্তি / প্রদেয় হিসাবে লিপিবদ্ধ করা হয়। এই হিসাবটি ঘূর্ণায়মান বিলি ব্যবস্থা থেকে পৃথক করা হয় এবং এর একটি পৃথক উদ্বর্ত – পত্র প্রস্তুত করা হয়।
“লেনদেনের শুল্ক” এবং “সিকিউরিটিজ লেনদেন কর (এস টি টি)” সদস্যদের লেনদেনের ওপর নির্ভর করে। লেনদেন করের হার সদস্যের মোট লেনদেনের “স্ল্যাব সিস্টেম” এর উপর ভিত্তি করে পরিবর্তিত হয়। পরিসংখ্যানের নেট প্রদেয় অর্থ ও নেট প্রাপ্য অর্থের উপর ভিত্তি করে একজন সদস্যের অবস্থিতি বিবেচিত হয়। উদ্বর্ত–পত্র ডাউনলোড এর মাধ্যমে সদস্য তা জানতে পারেন।

জমা করার তহবিল-

নিষ্পত্তির সময়কালের শেষের থেকে আগের ৩য় তম দিনে সকাল ১১ টার মধ্যে ক্লিয়ারিং ব্যাঙ্ক ঋণ গ্রহণ করে। সদস্যের পরিশোধের হিসাবটি সদস্যের উদ্বর্ত–পত্রের নেট প্রদেয় অর্থের সাহায্যে ব্যাঙ্ক দ্বারা পরিচালিত হয়। ঘূর্ণায়মান বিলি ব্যবস্থা ও স্বতন্ত্র্যসূচক বিলি ব্যবস্থার জন্য পৃথক উদ্বর্ত–পত্র প্রস্তুত করা হয়।

পরিশোধ তহবিল-

নিষ্পত্তির সময়কালের শেষের থেকে আগের ৩য় তম দিনে দুপুর ৩ টের পর ক্লিয়ারিং ব্যাঙ্ক ঋণ প্রদান করে। সদস্যের পরিশোধের হিসাবটি সদস্যের উদ্বর্ত–পত্রের নেট গৃহীত অর্থের সাহায্যে ব্যাঙ্ক দ্বারা পরিচালিত হয়। ঘূর্ণায়মান বিলি ব্যবস্থা ও স্বতন্ত্র্যসূচক বিলি ব্যবস্থার জন্য পৃথক উদ্বর্ত–পত্র প্রস্তুত করা হয়।

সুরক্ষা পরিশোধ-

সুরক্ষা পরিশোধ ঐ নির্দিষ্ট দিনে অর্থাৎ নির্দিষ্ট বাণিজ্যিক দিনের ৩য় কর্মরত দিনে সঞ্চালিত হয়। সুরক্ষা পরিশোধ একই সাথে (এন এস ডি এল এবং সি ডি এস এল) উভয় প্রকার ভাণ্ডার দ্বারা সঞ্চালিত হয়ে থাকে এবং সাধারণত এই কার্যধারা দুপুর ৩ টের মধ্যে সম্পন্ন হয়।

নিলাম (চুক্তি বন্ধ)-

যে সমস্ত বস্তু বিলি হয় না অথবা বিবৃতি অনুযায়ী পরিমানে কম থাকায় বিলি বাতিল হয়, সেই সমস্তগুলি এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ দ্বারা অধিকৃত হয়ে থাকে এবং সেই সদস্যের হিসাবপত্রে খরচ অনুমোদন করার জন্য ক্লিয়ারিং ব্যাঙ্কের কাছে নির্দেশ যায়। সেই শেয়ার নিলামের জন্য শেয়ারের বিস্তারিত সিস্টেমের কাছে পাঠানো হয়। এক্সচেঞ্জ নিলামের জন্য নির্দিষ্ট দিন ও সময় স্থির করে এবং সেই নির্দিষ্ট সদস্য ছাড়া বাকি সদস্য সেই অধিবেশনে অংশ গ্রহণ করতে পারবেন এবং নিলামের অধীনে মূল্য প্রস্তাব দাবী করতে পারবেন। শ্রেষ্ঠ অফার (সর্বনিম্ন দর) গৃহীত হয়. বর্তমানে প্রতিটি দিনই নিলামের চলতি উপনিবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
এতে তিন প্রকার হার প্রযোজ্য-
নিলামের হার- এটি হল সর্বনিম্ন মূল্য ভিত্তিতে নির্বাচিত প্রস্তাবের একটি গুরুত্তপূর্ণ গড় হার। শুধুমাত্র কিছু নির্বাচিত পরিমাণ এই উদ্দেশ্যে বিবেচিত হয়ে থাকে এবং এর সাথে খেলাপকারী সদস্যের ঋণ পত্রের সম্পর্ক থাকে।

কাট অফ রেট-

এটি হোল গৃহীত প্রস্তাবটির সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন হার। নিলামের দিনের ওই হারটি হল চূড়ান্ত হার এবং এর সাথে একটি কাট-অফ শতাংশ যুক্ত হয় যেটি এক্সচেঞ্জ দ্বারা বিবেচিত। বর্তমানে সেটি হোল ২০ শতাংশ।

ক্লোজআউট রেট-

যখন নিলামে কোন রকম ছাড় বা আংশিক ছাড় দেওয়া হয় না সেক্ষেত্রে হিসাব গননা করে ক্রেতার কাছে এই হার পেশ করা হয়। সেই হারটি সেই বাণিজ্যিক দিনের উচ্চতম হার হতে পারে এবং সাথে ২০ শতাংশ যুক্ত হয় অথবা বাণিজ্যিক দিন থেকে নিলামের দিন পর্যন্ত সেটি উচ্চতম হার হতে পারে।
নিলাম অধিবেশনের পর সিস্টেম সর্বনিম্ন প্রস্তাবটি গ্রহণ করে এবং যদি সেক্ষেত্রে বস্তুটির ওপর কোন প্রকার ছাড় না থাকে তবে সেই সর্বনিম্ন হারটি-ই চূড়ান্ত হার বলে গণ্য হয়। তদনুসারে সদস্যকে তাদের নিলামির প্রতিবেদন ডাউনলোড করতে হবে এবং ২ টি কর্মরত দিনের পর এক্সচেঞ্জে শেয়ারটি পাঠাতে হবে। এক্সচেঞ্জ তখন শেয়ারটি প্রাপক সদস্যের কাছে প্রেরন করে। নিলামির ক্ষেত্রে সুরক্ষা পরিশোধ মীমাংসা প্রক্রিয়ার মতই এক্ই ভাবে সঞ্চালিত হয়। এরপর এক্সচেঞ্জ ঐ খেলাপকারী সদস্যের হিসাবে মূল বিতরণ হার ও নিলামের হার এর অন্তরটি ঋণ রুপে ও নিলাম বিক্রেতাদের হিসাবে প্রদেয় রুপে নথিভুক্ত করতে ক্লিয়ারিং ব্যাঙ্ককে নির্দেশ দেয়।
স্বতন্ত্র্যসূচক অংশের বানিজ্যের ক্ষেত্রে বিলি না হওয়া বস্তু বা পরিমানে কম থাকা বাতিল বস্তুর কোন প্রকার নিলামি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না। পরিবর্তে ঐ খেলাপকারী সদস্যের শেয়ারটি বাতিল করা হবে।